HSC চল তড়িৎ অধ্যায়ের গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন PDF সহ

চল তড়িৎ পরীক্ষার জন্য অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ একটি অধ্যায়। এই অধ্যায় থেকে প্রতিবছরই দেখা যায় প্রশ্ন থাকে। এবং এই অধ্যায় থেকে মূলত ভর্তি পরীক্ষার জন্য অনেকগুলো প্রশ্ন করা হয়ে থাকে। সুতরাং এটাকে গুরুত্ব সহকারে পড়াটা অনেক বেশি দরকার। আজকে আমরা এই ব্লগ পোস্টে তোমাদের সামনে তুলে ধরব কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন এবং টেকনিক যেগুলো তোমরা কাজে লাগাতে পারবে। নিচে PDF Download করার লিঙ্ক আছে যেখান থেকে পি.ডি.এফ ডাউনলোড করে যেকোনো সময় পড়তে পারবে।

HSC চল তড়িৎ

ড. শাহজাহান তপন, আজিজ হাসান, রানা স্যার এর বই থেকে সার-সংক্ষেপ:

রােধের উষ্ণতা সহগ

0°C তাপমাত্রার একক রোধের কোনাে পরিবাহীর তাপমাত্রা প্রতি একক বৃদ্ধিতে তার রােধের যে বৃদ্ধি ঘটে তাকে ঐ পরিবাহীর উপাদানের রোেধের উষ্ণতা সহগ বলে।

জুলের তাপীয় ক্রিয়া

কোনাে পরিবাহীর দুই প্রান্তে বিভব পার্থক্য থাকলে তড়িৎ প্রবাহিত হয়। পরিবাহীর মধ্য দিয়ে তড়িৎ প্রবাহিত হলে ব্যয়িত তড়িৎ শক্তির কিছু অংশ পরিবাহীর রােধ অতিক্রম করার কাজে ব্যাহত হয়। এই ব্যয়িত শক্তি পরিবাহীতে তাপশক্তিরূপে প্রকাশ পায় এবং পরিবাহী উত্তপ্ত হয়। এই প্রক্রিয়াকে তড়িৎ প্রবাহের তাপীয় ক্রিয়া বা জুলের তাপীয় ক্রিয়া বলে।

অতিপরিবাহিতা

অতি নিম্ন তাপমাত্রায় কিছু কিছু পদার্থের রােধ শন্যে নেমে আসে। এ সকল পদার্থকে অতি পরিবাহী বা Super Conductor বলে। পদার্থের এ ধর্মকে অতিপরিবাহিতা বলে।

জুলের সূত্র

মূলত তোমাদের বইয়ে জুলের তিনটি সূত্র আছে। এগুলো হলাে:

প্রথম সূত্র-প্রবাহের সূত্র

পরিবাহীর রাধ (R) এবং প্রবাহকাল (t) অপরিবর্তিত থাকলে তড়িৎপ্রবাহের ফলে সৃষ্ট তাপ (H) প্রবাহের (I) বর্গের সমানুপাতিক।

দ্বিতীয় সূত্র-রােধের সূত্র

প্রবাহ (I) এবং প্রবাহকাল (t) অপরিবর্তিত থাকলে তড়িৎপ্রবাহের ফলে উদ্ভূত তাপ (H) পরিবাহীর রােধের (R) সমানুপাতিক হয়। অর্থাৎ H সমানুপাতিক R, যখন I ও t ধ্রুব।

তৃতীয় সূত্র-সময়ের সূত্র

প্রবাহ (I) এবং পরিবাহীর রােধ (R) অপরিবর্তিত থাকলে তড়িৎপ্রবাহের ফলে উদ্ভূত তাপ (H) প্রবাহকালের (t) সমানুপাতিক হয়।

ক্যালরি

এক গ্রাম (1g) বিশুদ্ধ পানির তাপমাত্রা এক ডিগ্রি সেলসিয়াস (1°C) বৃদ্ধি করতে প্রয়ােজনীয় তাপকে এক ক্যালরি (1 cal) বলে।

তাপের যান্ত্রিক সমতা

এক একক তাপ উৎপন্ন করতে যে পরিমাণ কাজ করতে হয়, বা এক একক তাপ দ্বারা যে পরিমাণ কাজ করা যায়, তাকে তাপের যান্ত্রিক সমতা বলে।

ক্যালরি ও জুলের সম্পর্ক : 1 cal = 4.2 J

হুইটস্টোন ব্রিজ

চারটি রােধ পর পর শ্রেণিবদ্ধভাবে যদি এমনভাবে সাজানাে হয় যে, প্রথমটির প্রথম প্রান্তের সাথে শেষটির শেষ প্রান্ত মিলে একটি বদ্ধ বর্তনী তৈরি হয় এবং যে কোনাে দুটি রোধের সংযােগস্থল ও অপর দুটি রােধের সংযােগস্থলের মধ্যে একটি কোষ ও অন্য দুটি সংযোগস্থলের মধ্যে একটি গ্যালভানােমিটার যুক্ত থাকে তবে সেই বর্তনীকে হুইটস্টোন ব্রিজ বলে।

হুইটস্টোন ব্রিজের চারটি বাহুর রােধ P. Q, R ও S হলে সাম্যাবস্থায় (P/Q)=(R/S)

শান্ট

অধিক পরিমাণ প্রবাহ গিয়ে যাতে গ্যালভানােমিটারকে নষ্ট করতে না পারে তার জন্য গ্যালভানােমিটারের সাথে সমান্তরালে যে অল্পমানের রােধ সংযুক্ত করা হয় তাকে শান্ট বলে।অধিক পরিমাণ প্রবাহ গিয়ে যাতে গ্যালভানাোমিটারকে নষ্ট করতে না পারে তার জন্য গ্যালভানােমিটারের সাথে সমান্তরাল সমবায়ে একটি অল্প মানের রােধ শান্ট হিসেবে সংযুক্ত করা হয়। এর ফলে মূল প্রবাহ দু'ভাগে বিভক্ত হয়ে যায় এবং শান্টের রােধ কম হওয়ায় বেশি পরিমাণ প্রবাহ এর ভেতর দিয়ে প্রবাহিত হয় এবং অল্প পরিমাণ প্রবাহ গ্যালভানােমিটারের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়। এতে গ্যালভানােমিটার নষ্ট হওয়ার হাত থেকে রক্ষা পায়।

কোনাে বর্তনীর বিভৱ পার্থক্য ও তড়িচ্চালক বল এক হয় না কেন?

বর্তনীর কোনাে এক বিন্দু হতে ১ কুলম্ব চার্জকে কোষ সমেত সম্পূর্ণ বর্তনী ঘুরিয়ে আবার ঐ বিন্দুতে আনা হলে যে কাজ সম্পন্ন হয় তাকে কোষের তড়িচ্চালক বল বলে। অপরদিকে, তড়িৎ ক্ষেত্র বা তড়িৎ বর্তনীর এক বিন্দু হতে অপর এক বিন্দুতে 1 কুলম্ব চার্জ স্থানান্তর করতে যে কাজ সম্পন্ন হয় তাকে ঐ বিন্দুদ্বয়ের বিভব পার্থক্য বলে।

বর্তনীতে তড়িচ্চালক বল, বিভব পার্থক্য অপেক্ষা বেশি হয়। কারণ, কোষের অভ্যন্তরীণ রােধের জন্য কোষে কিছু বিভব পতন ঘটে। অর্থাৎ, বর্তনীর তড়িচ্চালক বল = বর্তনীর বিভব পার্থক্য + অভ্যন্তরীণ বিভব পতন। ফলে, কোনাে বর্তনীর বিভৱ পার্থক্য ও তড়িচ্চালক বল এক হয় না।

চার্জের কোয়ান্টায়ন কী?

চার্জেরও একটি নির্দিষ্ট ন্যূনতম মান আছে- যা অপেক্ষা কম মানের চার্জ পাওয়া সম্ভব নয় এবং যেকোনাে চার্জিত বস্তুতে মােট চার্জের পরিমাণ ঐ ন্যূনতম চার্জের অখণ্ড গুণিতক একে চার্জের কোয়ান্টায়ন বলে।

হারানাে ভােল্ট বলতে কী বােঝায়?

কোষের তড়িচ্চালক শক্তি একটি অংশ V' = Ir = E - IR যা কোষের ভেতর দিয়ে তড়িৎ প্রবাহ চালনা করতে ব্যয়িত হয় তাকে হারানাে ভােল্ট বলে। কেননা তড়িৎ প্রবাহ চলাকালীন ভােল্টামিটারের সাহায্যে কোনাে কোষের দুই পাতের বিভব পার্থক্য পরিমাণ করা হলে যুক্ত অবস্থার বিভব পার্থক্যের চেয়ে এই পরিমাণ বিভব পার্থক্য কম পাওয়া যায়। প্রবাহ যত বেশি হবে হারানাে ভােল্টও তত বেশি হবে।

নিরাপত্তা ফিউজে বিশুদ্ধ ধাতু ব্যবহার করা হয় না কেন?

সীসা ও টিনের (সীসা 75% এবং টিন 25%) সংমিশ্রণে তৈরি একটি সরু তারকে নিরাপত্তা ফিউজ হিসেবে ব্যবহার করা হয়। এ তারের গলনাঙ্ক কম (প্রায় 300°C)। তারের মধ্য দিয়ে অতিরিক্ত তড়িৎ প্রবাহিত হলে তারটি গরম হয়ে উঠে এবং তা গলে গিয়ে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করে দেয়। মূলত গলনাঙ্ক কমাবার জন্য নিরাপত্তা ফিউজে বিশুদ্ধ ধাতু ব্যবহার করা হয় না।

PDF Download করার জন্য HSC চল তড়িৎ PDF ফাইল টিকে Google Drive থেকে Download করো। এখানে আছে চল তড়িৎ সৃজনশীল প্রশ্ন যা বোর্ড পরীক্ষায় এসেছিলো।

Tags

Post a comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Below Post Ad